প্রধান সমন্বয়ক এম রহমান মাসুম কর্তৃক ‘RFB’ এর আনুষ্ঠানিক আত্মপ্রকাশের ঘোষণা

475
প্রবাসীদের কল্যাণে কাজ করার অঙ্গীকার”  আনুষ্ঠানিক আত্মপ্রকাশের ঘোষণা হলো রেমিটেন্স ফাইটার অফ বাংলাদেশের।
বিবরণ সহ বিস্তারিত নিচে তুলে ধরা হলো..

“বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম ”

 

সূচনাঃ
প্রবাসে এবং দেশে যে যেখান থেকে ইতিমধ্যে যুক্ত হলেন এবং হবেন সবাইকে সালাম, ভালোবাসা ও শুভেচ্ছা জানিয়ে আজকের অতীব স্মরণীয় গুরুত্বপূর্ণ ঘরোয়া পরিসরের বিশেষ ভার্চুয়াল অনুষ্টান শুরু করছি, সাথে আছি আপনাদের ভাই-বন্ধু এম রহমান মাসুম নিউইয়র্ক আমেরিকা থেকে।

আজকের বিশেষ লাইভের বিষয়ঃ-
আজকের বিশেষ লাইভ বা ভার্চুয়াল অনুষ্টানের মুল বিষয় হলো প্রবাসীদের স্বার্থ সুরক্ষার সংগঠন “রেমিট্যান্স ফাইটার্স অফ বাংলাদেশের” আনুষ্ঠানিক ঘোষণা।

প্রেক্ষাপটঃ-

স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশের অর্থনীতির চালিকা শক্তি পর্যায়ক্রমে পাট, বস্র হলেও বর্তমান সময়ে অর্থনীতির মূল চালিকা শক্তি প্রবাসী রেমিট্যান্স।
এতে প্রবাসী রেমিট্যান্স এর গুরুত্ব ব্যখ্যা করা বাহুল্য ।
দেশের এই সূর্যসন্তান অর্থনীতির অক্সিজেনরুপে অবিভূত হলেও রহস্যজনকভাবে তাদের প্রতি রাষ্ট্রের যথাযথ যত্নশীল মনোভাব দৃশ্যমান না হওয়ায় বিষয়টি আমার মনে দাগ কাটে। অথচ, রাষ্ট্রের উচিত ছিল রেমিট্যান্স যোদ্ধাদের জন্য সর্বোচ্চ পরিচর্যা পরিসেবা নিশ্চিত করা। কিন্তু দায়িত্বশীল কর্তৃপক্ষের সুষ্ঠু দায়িত্ব পালনে ঘাটতি কিংবা খামখেয়ালিপনার জন্য প্রতিনিয়তই রেমিট্যান্স যোদ্ধারা বঞ্চনার শিকার হচ্ছেন। যেহেতু, রাষ্ট্রযন্ত্র যথাযথ দায়িত্ব পালনে যথেষ্ট পেশাদারিত্বের পরিচয় দিতে অসমর্থ হচ্ছে সেই উপলব্ধি থেকেই আমি একজন প্রবাসী হিসেবে রেমিট্যান্স যোদ্ধাদের মনের অব্যক্ত ব্যথা অনুভব করে প্রবাসীদের স্বার্থ সুরক্ষার ব্রত নিয়ে একটি সংগঠনের প্রয়োজনবোধ করি যা ইতিমধ্যেই অনানুষ্ঠানিক ভাবে আপনাদের কাছে পৌছে গেছে “রেমিট্যান্স ফাইটার্স অফ বাংলাদেশ” নামে।

লক্ষ্য, উদ্দেশ্য ও কর্মপদ্ধতিঃ-

প্রবাসীদের একমাত্র বৈশ্বিক সংগঠন “রেমিট্যান্স ফাইটার্স অফ বাংলাদেশ” রেমিট্যান্স যোদ্ধাদের যোগ্যতা ও দক্ষতার মানোন্নয়ন, কর্মস্থলে যথাযথ নিরাপত্তা নিশ্চিতকরন, রাষ্ট্রকর্তৃক সর্বোচ্চ পরিচর্যার মাধ্যমে দেশের এই সূর্যসন্তানদের স্বার্থ সুরক্ষার লক্ষ্যে রাষ্ট্রের সহায়ক শক্তি মানে এডভোকেসি টিম কিংবা প্রেসারগ্রুপ হিসেবে কাজ করা।
এছাড়াও, অধিক জনসংখ্যার আমাদের এই দেশে ক্রমশই বেকারত্ব সমস্যা একটি প্রকট আকার ধারন করছে। এই সমস্যা প্রতিকারের লক্ষ্যে দেশের বেকার জনগোষ্ঠীকে যথোপযুক্ত প্রশিক্ষণের মাধ্যমে জনশক্তিতে রুপান্তর করে বহির্বিশ্বে নিত্য নতুন শ্রম বাজার আবিষ্কারের মাধ্যমে দেশের অর্থনীতির সার্বিক অগ্রগতি সাধন করতে সংগঠন কর্তৃক রাষ্ট্রযন্ত্রকে সর্বাত্মক সহযোগিতা প্রদান।

ঘোষণাঃ-
সমুদয় বিষয়ের নিরিখে আমি এম রহমান মাসুম একজন বাংলাদেশী রেমিট্যান্স যোদ্ধা হিসেবে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে স্বেচ্ছা সেবার ব্রত নিয়ে প্রবাসীদের সম্ভাব্য সর্বময় কল্যাণ নিশ্চিতকরন কল্পে আন্তর্জাতিক মানের অধিকার সুরক্ষার সংগঠনে রুপ দিতে “রেমিট্যান্স ফাইটার্স অফ বাংলাদেশ” নামে আনুষ্ঠানিক আত্মপ্রকাশ ঘোষণা করছি।

উপসংহারঃ- ১৯৭১ সালের ২৫ শে মার্চ রাতে বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্থপতি কোটি মানুষের হৃদয়ের স্পন্দন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে পশ্চিম পাকিস্থানি সেনারা যখন ধরে নিয়ে যায়, ঠিক তখনই আবির্ভাব ঘটে শহীদ প্রেসিডেন্ট মেজর জিয়াউর রহমানের। যিনি অকুতোভয় দেশপ্রেমের চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে কালুরঘাট বেতারকেন্দ্র থেকে স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়ে দেশবাসীকে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণের আহবান জানান। ঠিক একইভাবে রাষ্ট্রযন্ত্র যখন প্রবাসীদের স্বার্থ সুরক্ষা নিশ্চিত করতে অসমর্থ্য হচ্ছে ঠিক তখনই সহায়ক-শক্তি হিসেবে কাজ করতে “রেমিট্যান্স ফাইটার্স অফ বাংলাদেশ” এর এগিয়ে আসা। আপনাদের সংগঠন “রেমিট্যান্স ফাইটার্স অফ বাংলাদেশ” এর কার্যক্রম বেগবান করতে আপনাদের স্বেচ্ছা শ্রম,মেধা, নেতৃত্ব দিকনির্দেশনা অপরিহার্য ভূমিকা রাখবে বলে আশাবাদী। যারা এই সংগঠনের সাথে নিঃস্বার্থভাবে কাজ করতে ইচ্ছুক সবাইকে স্বাগত জানাচ্ছি। পরবর্তীতে সংগঠনের পূর্ণ রুপ রেখা সহকারে পূর্ণাঙ্গ আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করা হবে। এরই সাথে সংগঠনের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে কিভাবে যুক্ত হবেন তা পরবর্তীতে লাইভে এসে সবাইকে জানিয়ে দেওয়া হবে।

বলাবাহুল্য, করোনাকালীন মহামারীর অসংগতি এড়িয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে ঘরোয়া পরিসরে সংগঠনের আত্মপ্রকাশ ঘোষণা করতে বাধ্য হলাম।

সাথে থাকুন সাথে রাখুন সুস্থ থাকুন, শুভকামনা ও ভালোবাসা নিরন্তর।

Together we Progress, Inshallah.

আল্লাহ হাফেজ, আসসালামু আলাইকুম।

এম রহমান মাসুম,
প্রধান সমন্বয়ক
রেমিট্যান্স ফাইটার্স অফ বাংলাদেশ
নিউইয়র্ক, আমেরিকা।
২৫/০৭/২০২০