বিজ্ঞান প্রমাণিত ওজু দৈহিক সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে

62

দৈহিক সৌন্দর্য চাইনা কিংবা দৈহিক সৌন্দর্য বৃদ্ধি করতে চাইনা এমন মানুষ পৃথিবীতে আছে বলে মনে আমার হয়না!

সবাই চায় সুন্দর হতে, এমনি যাদের সোন্দর্য আছে তারা ও চায় আরেকটু সৌন্দর্য বাড়াতে। আর এই সৌন্দর্য পেতে মানুষ কতো টাকা পয়সা খরচ করে থাকেন! দামী ঔষুধ, দামী ক্রিম, দামী ফলমুল, দামী মেকআপ এর দ্রব্যসামগ্রী ইত্যাদি ব্যবহার করে থাকেন।
কিন্তু দুঃখের ব্যাপার হলো এতো কিছু করার পরও আশানুরূপ ফল পায়না।

একদম ঝামেলা ছাড়াই আপনি আপনার দৈহিক সৌন্দর্য বৃদ্ধি করতে পারবেন শুধু মাত্র “ওজু করার মাধ্যমে।

বিজ্ঞান বলে:-
নিয়মিত মুখ ধৌত করলে মুখের ব্রণ এবং মুখে দাগ হয়না কিংবা বয়সের ছাপ পড়েনা। এসব হলেও খুব কম হয়। স্বাস্হ্য এবং সৌন্দর্য বিশেষজ্ঞগণ এ ব্যাপারে ঐক্যমত পোষন করেছেন। তারা বলেছেন, যাবতীয় ক্রীম, লোশন চেহারায় দাগের সৃষ্টি করে। সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য প্রত্যহ কয়েকবার চেহারা ধৌত করা খুবই ফল্প্রদ।

আমেরিকান কাউন্সিল ফর বিউটি সংস্থার সম্মানিত সদস্য ‘লেডী হিচার’ বিস্ময়কর এক তথ্য উদঘাটন করেছেন। তিনি বলেন, মুসলিম সম্প্রদায়ের কোনো প্রকার রাসায়নিক লোশন ব্যবহারের প্রয়োজন নেই।কারণ, তারা ইসলামী ওজু দ্বারা চেহারার যাবতীয় রোগ থেকে রক্ষা পায়।

মহানবী রাসুল (সঃ) বলেছেন:-
তোমরা যারা বেশি বেশি ওজু করবে কেয়ামতের দিন তাদের ওজুর পানি দ্বারা ধৌত অঙ্গ সমুহ থেকে উজ্জ্বল জ্যোতি বিচ্ছুরিত হবে। এবং দুনিয়াতেও তাদের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পাবে এবং চেহারায় লাবণ্য ফিরে আসবে।

রেফারেন্স:-
সুন্নতে রাসুল (সা.) ও আধুনিক বিজ্ঞান:- খন্ড-১, পৃষ্টা-৪৭-৫৪, বেহেশতি জেওর, নাসায়ী, তিরমিযী, শামী, বুখারী ও মুসলিম।