সৌদিআরবে ৫% ভ্যাট একলাফে ১৫%. জুলাই থেকে কার্যকর।

65

করোনাভাইরাসে বিশ্বে তেলের দাম পড়ে যাওয়ায়, তেলসমৃদ্ধ সৌদিতে বছরের প্রথম ৩মাসেই বাজেট ঘাটতি বেড়ে গেছে প্রায় ৯শ’ কোটি ডলার

 

করোনাভাইরাসের কারণে যেভাবে সৌদি আরবের অর্থনীতি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, তা মোকাবেলায় দেশটির সরকার দেশটিতে মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) একবারে তিনগুণ বাড়িয়ে ১৫ শতাংশ করার ঘোষণা দিয়েছে। জুলাই মাস থেকে এই বর্ধিত হারে কর দিতে হবে সৌদি জনগণকে।

 

এর পাশাপাশি সরকারি কর্মচারীদের যে মহার্ঘ ভাতা দেওয়া হয়, সেটিও জুন মাস থেকে বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। ২০১৮ সাল থেকে সরকারি কর্মচারীদের প্রতিমাসে একহাজার রিয়াল (২৬৭ ডলার) করে ভাতা চালু করেছিলো সৌদি সরকার।

 

তেলসমৃদ্ধ সৌদি আরবের অর্থনীতি করোনাভাইরাস মহামারির কারণে তীব্র সংকটে পড়েছে। বিশ্বে তেলের চাহিদা কমে যাওয়ার পাশাপাশি তেলের দামও পড়ে গেছে অনেক।

 

সৌদি আরবে মূল্য সংযোজন কর চালু করা হয়েছিল মাত্র দু’বছর আগে। মূলত তেল বিক্রির অর্থের ওপর অতিরিক্ত নির্ভরশীলতা কমাতে সৌদি সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। তবে অন্য অনেক দেশের তুলনায় এই করের পরিমাণ ছিল বেশ কম, মাত্র ৫ শতাংশ।

 

সৌদি আরবের অর্থমন্ত্রী মোহাম্মদ আল-জাদান এক বিবৃতিতে বলেছেন, “এসব পদক্ষেপ হয়তো খুবই কষ্টকর কিন্তু স্বল্প ও দীর্ঘ মেয়াদে সৌদি আরবের অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখার জন্য তা খুব প্রয়োজন।”

 

সৌদি আরব সরকারের ব্যয় আয়ের তুলনায় ক্রমশই বাড়ছে। শুধু এবছরের প্রথম তিনমাসেই বাজেট ঘাটতি বেড়ে গেছে প্রায় ৯শ’ কোটি ডলার।

 

তেলের দাম যেভাবে বিশ্ববাজারে পড়ে গেছে, সেটাই এর কারণ। এবছরের প্রথম তিনমাসে তেল বিক্রি থেকে সৌদি আরবের রাজস্ব এসেছে ৩,৪০০ কোটি ডলার। এটি আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় যা ২২ শতাংশ কম।

এছাড়া, সৌদির বৈদেশিক মূদ্রার মজুদ কমছে অত্যন্ত দ্রুত গতিতে। মার্চ মাসে যে গতিতে তাদের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কমেছে তার ফলে এটি ২০১১ সালের পর সর্বনিম্ন পর্যায়ে নেমে এসেছে।